তারিখ : ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে সাবরেজিস্ট্রি অফিস

ভালুকায় ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে সাবরেজিস্ট্রি অফিস
[ভালুকা ডট কম : ৩১ অক্টোবর]
ভালুকা উপজেলা সাবরেজিস্ট্রি অফিসের ভবন ও ভবনের ছাদ বেহাল হয়ে পড়ায় ঝুঁকি নিয়ে দাপ্তরিক কার্যক্রম চলছে। সরকারের সর্ব্বোচ রাজস্ব আদায়কারী দপ্তরের এ ভবনটির কাজ অতি নিম্নমানের হওয়ায় ছাদ, ভিম ও দেয়ালে অসংখ্য ফাটল দেখা দিয়েছে। এ দপ্তরটিতে সারা উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সরকারী ও বেসরকারী দলিল দস্তাবেজ রয়েছে। পাশাপাশি দলিলের রেকর্ড বহি ধারণ করার জয়গায় নেই। তাই একটি নতুন ভবন নির্মাণ অতি জরুরী হয়ে দাড়িয়েছে।

ভালুকা সাবরেজিস্টারের কার্যালায়ে গিয়ে দেখা যায়, এ ভবনটি ১৯৮৮সালে নির্মাণ করা হয়। ভেতরে  হাজারো নতুন-পুরনো নথিপত্র ও দলিলের স্তুপ। কিন্তু ভবনটির ওপর দিকে তাকালে তার আসল দৈন্য চোখে পড়ে। ভবনটির বিমের কিছু অংশ ও ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ছে। সেখান দিয়ে বেরিয়ে আসছে রড। রেকর্ড রুম, সাব-রেজিস্ট্রারের এজলাস ও খাস কামরাসহ প্রতিটি রুমের যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। পলেস্তারা খসে পড়ে ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ ও ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বৃষ্টি হলেই ছাদ চুইয়ে কক্ষের ভিতরে পানি পড়ে একাকার হয়ে যায়। বৃষ্টির পানি ভিতরে পড়ে রেকর্ডপত্র নষ্ট হওয়ার আশঙ্কায় তা রক্ষায় রেকর্ড রুমের ছাদের সিলিংয়ের নিচে ভিমের সঙ্গে পলিথিন ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। ফ্লোর ফেটে দেবে গেছে। ফাটলে উঁইপোকা বাসা বাঁধায় গুরুত্বপূর্ণ রেকর্ডপত্র উঁইপোকায় নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। ভবনটির অবস্থা এতই নাজুক এর বাইরে বট গাছের চারা গজিয়ে ওঠেছে। পলেস্তারা খসে পড়ে ও ছাদ ভেঙে মাথার ওপর পড়ার আশঙ্কা নিয়ে ভিতসন্ত্রস্ত অবস্থায় সাব-রেজিস্ট্রারসহ অন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দাপ্তরিক কাজ করতে হয়। এছাড়া সাবরেজিস্ট্রি অফিসে দলিল করতে আসা দাতা ও গ্রহিতাদেরকেও আতঙ্কের মধ্যে সেখানে অবস্থান করতে হয়।  ভবনটির অবস্থা এতোটাই নাজুক যে, যে কোনো সময় ভবনটির পলেস্তারা মাথায় ধসে পড়তে পারে।

প্রতি বছর অত্র অফিসে ১২/১৩হাজার দলিল হয়ে থাকে। এ সব দলিলের রেকর্ড বহি রাখার জায়গায় সংকোলন হচ্ছে না। যদি জায়গায় সংকোলনের জন্য রেকর্ড বহি যদি জেলা রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তাহলে স্থানীয় দলিল দাতা গ্রহিতার চরম বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। ইতোপূর্বে সব শেষ ১৯৮৯সাল পর্যন্ত দলিলের রেকর্ড জেলা রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে যাওয়া হয়েছে। জায়গায় সংকোলন ও ভবনের দৈন- ধসার জন্য রেকর্ড বহি জেলা রেকর্ড রুমে স্থানান্তর করা হয় এতে ভালুকার মানুষের চরম বিড়ম্বনার শিকার হতে হবে।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে একজন দলিল লেখন বলেন, ভূমি রেজিস্ট্রেশন খাতটি সরকারের রাজস্ব আদায়ের একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ। এ খাত থেকে সরকার প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করে থাকে। অথচ এ উপজেলায় সেই দাপ্তরিক কাজকর্ম যেখানে চলছে সেখানকার ভবনটি কেন ঝুঁকিপূর্ণ? তাই দ্রুত সময়ের মধ্যে পুরাতন ভবনটি ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

দলিল করতে আসা উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নের মজিবুর রহমান বলেন অফিসের ছাদের যে বেহাল অবস্থা তা যে কোনো সময় মাথায় পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ভবনটি ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণ করা জরুরি হয়ে পড়েছে।

ওই অফিসের নকল নবীস নুরে আলম ও মাহবুবা আক্তার বলেন আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি। এখানে জনগণের মুল্যবান কাগজ সংরক্ষিত থাকে তা নষ্ট হলে বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে। তাই দ্রুত নতুন ভবন নির্মাণ খুবই প্রয়োজন।

উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি নুরে আলম সিদ্দিকী সপন বলেন,আমাদের ভালুকার এমপি মহোদয় মাননীয় আইন মন্ত্রীর সাথে ভালুকার সাবরেজিস্ট্রি অফিসের বেহাল দশা নিয়ে কথা বলেছেন হয়তো কিছু দিনের মধ্যে ভবনটি ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে। নতুন ভবন নির্মান জরুরি হয়ে পড়েছে। তা না হলে বৃষ্টির পানির কারণে রেকর্ডপত্র নষ্ট হয়ে যাওয়াসহ যেকোনো সময় ভবনটির পলেস্তারা মাথায় পড়ে যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

ভালুকা সাবরেজিস্ট্রি অফিসের সাবরেজিস্টার মো. বোরহান উদ্দিন সরকার জানান, অফিসের বিল্ডিংটি ডেমেজ হয়ে যাওয়ায় দ্রুত ডেমেজ করে দিয়ে নতুন ভবন নির্মাণ করা জরুরী। এখানে জনগণের মুল্যবান কাগজ দলিল দস্তাবেজ সংরক্ষিত থাকে তা হেফাজতের দায়িত্ব আমাদের। যদি পানি পড়ে এ গুলো নষ্ট হয় তাহলে পুনরুদ্ধার করা সম্ভব নয়। নতুন ভবন নির্মাণ করলে আমাদের যেমন কাজ করতে সুবিধা হবে তেমনি জনগণের দলিল কাগজ পত্রাদি সু-রক্ষিত থাকবে।

জেলা রেজিস্ট্রার সরকার লুৎফুর কবীর জানান,এ ভবনটি দৈন্যধসা দেখে আমি বেশ কয়েকবার আইজিআর বরাবর চিঠি দিয়েছি কোনো কাজে আসছে না। অতিদ্রুত নতুন ভবন নির্মাণ না করা হলে আমি ভালুকার রেকর্ড বহি জেলাতে নিয়ে যেতে বাধ্য হবো।#





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২২০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই