তারিখ : ০২ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকার আমিন বাজারে সেই অস্থায়ী দোকানিদের স্থায়ী ব্যবস্থা

ভালুকার আমিন বাজারে সেই অস্থায়ী দোকানিদের স্থায়ী ভাবে বসার ব্যবস্থা
[ভালুকা ডট কম : ১৬ ফেব্রুয়ারী]
ভালুকা পৌরসভার প্রধান সড়কের পাশের ফুটপাত ও রাস্তা থেকে অস্থায়ী দোকানিদের সরানো হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় পৌর সদরের পাঁচ রাস্তা মোড়ের রায় মার্কেটের নীচ তলায় আমিন বাজারের নামে অস্থায়ী দোকানিদের স্থায়ী ভাবে বসার ব্যবস্থার উদ্বোধন করেন স্থানীয় সাংসদ কাজিম উদ্দিন আহমেদ ধনু।

গত কয়েক বছর ধরে ভালুকা পৌরসভার প্রধান সড়কের পাশে পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসছেন অস্থায়ী দোকানিরা। এতে ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভিড়ে রাস্তাটি সরু হয়ে পড়ত।ফলে সমস্যা হত যানবাহনের চলাচলে। রাস্তার যানজটে সরকারি হাসপাতালের রোগী, কয়েকটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও পথচারীদের যাতায়াতে পোহাতে হয় দুর্ভোগ। অনেক সময় অ্যাম্বোলেসকেও রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

পাঁচ রাস্তার মোড়ের পশ্চিম-উত্তর দিকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। পূর্ব পাশেই ভালুকা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও প্রাথমিক বিদ্যালয়।দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে হালিমুন্নেছা চৌধুরানী মেমোরিয়াল বালিকা উচ্চবিদ্যালয় । উত্তর দিকে ভালুকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়। এই মোড়ের আশ পাশেই রয়েছে আরও কয়েকটি প্রাইভেট ক্লিনিক,ব্যাংক ও বিপণি বিতান।

ব্যস্ততম এই মোড়ের রাস্তার পাশে এভাবে দোকান বসা কয়েক বছর ধরেই চলছে। কিন্তু এ নিয়ে পৌর কর্তৃপক্ষের কোনো উদ্যোগ নেয়নি। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযান চালিয়ে এসব দোকান একাধিকবার উচ্ছেদ করা হয়েছে। তবে বারবারই উচ্ছেদের দুই-তিন দিন পর আবার সেখানে দোকান নিয়ে বসতেন ব্যবসায়ীরা।

এ বিষয়ে গত বছরের ১৭ অক্টোবর valuka.com  এ ‘ভালুকার রাস্তায় পণ্যের পসরা,ভোগান্তিতে পথচারী’ শিরোনামে একটি স্বচিত্র প্রতিবেদন ছাপা হওয়ার পর কিছুটা টনক নড়ে পৌর কর্তৃপক্ষের। এরপর রাস্তার পাশের এই অস্থায়ী দোকানিদের অন্যত্র সরানোর উদ্যোগ নেয় কর্তৃপক্ষ। এর ফলে রাস্তার পাশে দোকান বসা কয়েক দিন বন্ধ থাকে।

গত ৭ নভেম্বর পাইলট উচ্চবিদ্যালয় রোডের পাশে একটি নির্মাণাধীন মার্কেটের নিচতলায় ওই দোকানিদের বসার ব্যবস্থার উদ্বোধন করেন ভালুকা পৌরসভার মেয়র এ কে এম মেজবাহ উদ্দিন। ওই দিন সন্ধ্যায় দোকানিদের রাস্তার পাশে আর না বসার জন্য মাইকিংও করা হয়। কিন্তু এর চার দিন পরই দোকানিরা আবার সেই রাস্তার পাশেই বসতে শুরু করেন।

গত ১৭ নভেম্বর একটি পত্রিকায় ‘রাস্তার পাশে ফের কেনাবেচা’ শিরোনামে আরেক স্বচিত্র প্রতিবেদন ছাপা হয়। এরপরই স্থানীয় সাংসদ কাজিম উদ্দিন আহমেদ ধনু ভালুকা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফজলুল আমিন লিটনকে ডেকে বিষয়টি সমাধানের নির্দেশ দেন। পরে ফজলুল আমিন রাস্তার পাশের অস্থায়ী এই দোকনিদের কাছ থেকে জামানতের টাকা নিয়ে প্রায় এক কোটি টাকা খরচ করে রায় মার্কেটের নীচ তলায় আমিন বাজারের নামে দোকানিদের স্থায়ী ভাবে বসার ব্যবস্থা করেন।

এ বিষয়ে ফজলুল আমিন লিটন বলেন, পাঁচ রাস্তার মোড়ের রাস্তার পাশে আর কোনো দোকানিকে বসতে দেওয়া হবে না।রায় মার্কেটের নিচ তলায় এই অস্থায়ী দোকানিদের জন্য স্থায়ী ভাবে ব্যবসার করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেখানে ১৬২ জন দোকানি তাদের দোকানের পন্যের পসরা সাজিয়ে বসতে পারবেন। ক্রেতারা এই মার্কেট থেকে শাক-সবজি মাছ,মাংসসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পন্য কিনতে পারবেন।#






সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৩৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই